কলেজছাত্রীকে অপহরণ অতপর…..

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় রাজাপুরে এক এক কলেজ ছাত্রীকে অপহরণ করে শারিরিক নির্যাতনের অভিযোগ মামলা হয়েছে। কৌশলে পালিয়ে এসে ছাত্রীটি নিজেই বাদী হয়ে মাইনুল ইসলাম নামে এক যুবককে প্রধান আসামী করে রাজাপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় অজ্ঞাত আরো দুজনকে আসামী করা হয়েছে। অভিযুক্ত মাইনুল উপজেলার দক্ষিণ রাজাপুর গ্রামের তানজের সিকদারের ছেলে।

কলেজ ছাত্রীটি ওই উপজেলার একটি কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাশ করে স্নাতকে ভর্তির প্রক্রিয়ায় রয়েছেন। মামলার বিবরণে জানাগেছে, বৃহস্পতিবার (১৫ জুন) দুপুরে রাজাপুরে একটি কম্পিউটারের দোকানে ছাত্রীটি স্নাতকে ভর্তির জন্য অনলাইনে আবেদন করতে আসেন।

এ সময় তাঁর পিছু নিয়ে মাইনুল ইসলাম ও সহযোগিরা ওই দোকানে যায়। কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে ছাত্রীটিকে জোর করে মোটরসাইকেলে তুলে মাইনুল ও তার সহযোগিরা এক আত্মীয়ের বাসায় নিয়ে যায়।
সেখানে তাকে শারীরিক নির্যাতন করা হয় তাকে। মারধরের এক পর্যায়ে সে অচেতন হয়ে পড়ে। এলোপাথারি কিল-ঘুষিতে মুখমন্ডল রক্তাক্ত জখম হয়। কিছু সময় পরে চেতনা ফিরলে নিজেকে একটি ঘরের মধ্যে দেখতে পান ছাত্রীটি।
পরে সে কৌশলে সেখান থেকে পালিয়ে স্বজনদের সহযোগিতায় রাজাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন। পরের দিন শুক্রবার দুপুরে রাজাপুর থানায় এসে নিজেই বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

ছাত্রীটি জানায়, কলেজে আসা যাওয়ার সময় দীর্ঘ দিন ধরেই মাইনুল তাকে উত্যক্ত করে আসছে। বিভিন্ন সময় প্রেম ও বিয়ের প্রস্তাব দেয়। এতে রাজি না হওয়ায় মাইনুল তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।
এ ব্যপারে রাজাপুর থানার পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) মো. হারুন অর রশীদবলেন, কালেজ ছাত্রীর লিখিত অভিযোগটি থানায় নথিভূক্ত করা হয়েছে। অভিযুক্ত মাইনুলসহ আসামীদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে, বলেন ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

আপনার মতামত জানানঃ