খুলনায় আলোচিত কোকেন মামলায় ১ জনকে মৃত্যুদন্ড, ৫ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা

ইউনিক প্রতিবেদক :
খুলনায় আলোচিত কোকেন মামলার বিচারে একজনকে মৃত্যুদন্ড ও অপর পাঁচজনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করেছে জেলা ও দায়রা জজ আদালত। বৃহস্পতিবার দুপুরে খুলনার সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মশিউর রহমান চৌধুরী রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণা কালে ০৬ জন আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন, বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দায়রা জজ আদালতের পিপি এনামুল হক।

রায়ে আসামী বিকাশ চন্দ্র বিশ্বাসকে মৃত্যুদন্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা ধার্য্য করা হয়েছে। অপর পাঁচ আসামী সোহেল রানাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা, আরিফুর রহমান ছগিরকে ১৫ বছর সশ্রম কারাদন্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে ২ বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড, বিকাশ চন্দ্র মন্ডল ও এস এম এরশাদ হোসেন ও ফজলুর রহমান ফকিরকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও ২৫ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরও এক বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

রাষ্ট্র পক্ষের কৌসুলি পিপি এনামুল হক বলেন, ‘বিজ্ঞ আদালতের রায়ে আমরা সন্তুষ্ট। আমরা আসামীদের অপরাধ প্রমাণ করতে পেরেছি। মামলায় ২৭ জন স্বাক্ষীর মধ্যে ২৪ জন স্বাক্ষী সাক্ষ্য প্রদান করেছেন।’

অপরদিকে আসামী পক্ষের উকিল এ্যাড. আসাদুজ্জামান লিটন বলেন, ‘আমরা রায়ে সন্তুষ্ট নই। আমরা এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপীল করবো।’

আদালত সূত্র জানান, ২০১৭ সালের ১১ আগস্ট রাত সাড়ে ১০ টার দিকে র‌্যাব-৬ খুলনার একটি দল নগরীর হাদিস পার্কের সামনে অবস্থান কালে দলটি গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে ময়লাপোতা মোড়ের পাশে একটি চক্র মাদক বেচাকেনা করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে দলটি নগরীর ময়লাপোতা মোড়ের আল আরাফা ইসলামী ব্যাংক এটিএম বুথের সামনে হতে সোহেল রানা নামের এক ব্যক্তিকে ২শ’ ৩০ গ্রাম কোকেন সহ আটক করেন। যার অনুমানিক মূল্য ২ কোটি ৩০ লাখ টাকা।

গ্রেফতারকৃত সোহেলের থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে গগনবাবু রোডের একটি বাড়ি থেকে কোকেন বিক্রির মূল হোতা আরিফুর রহমান ছগিরকে গ্রেপ্তার করে। পরবর্তীতে ছগিরের দেওয়া তথ্য মোতাবেক দাকোপ উপজেলায় রাত তিনটার দিকে অভিযান চালিয়ে বিকাশ চন্দ্র মন্ডল ও ফজলুর রহমান ফকিরকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাদের দেওয়া তথ্যানুযায়ী টুটপাড়ায় থেকে এস এম এরশাদ আলীকে গ্রেপ্তার এবং তাদের দেওয়া তথ্যমতে রূপসা উপজেলার রাজাপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিকাশ চন্দ্র বিশ্বাসকে কোকেনের তিনটি প্যাকেটসহ গ্রেপ্তার করা হয়। যার মধ্যে ২ কেজি ২০ গ্রাম কোকেন পাওয়া যায়। এ মাদক চক্র থেকে মোট সোয়া দুই কেজি কোকেন জব্দ করা হয় যার আনুমানিক বাজার মূল্য ২২ কেটি ৫০ লাখ টাকা।

পরবর্তীতে ১২ আগস্ট ২০১৭ সালে র‌্যাবের ওয়ারেন্ট অফিসার মোঃ রবিউল ইসলাম বাদী হয়ে ছয় জনের নাম উল্লেখ করে রূপসা থানায় মাদক আইনে মামলা দায়ের করেন যার নং ২২৪/১৭। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপার বজলুর রশীদ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ সালে ০৬ জনকে আসামী করে চার্জসীট দাখিল করেন।

আপনার মতামত জানানঃ