মোল্লাহাট ডিকেকে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অবৈধ অর্থ আদায়ের অভিযোগ

ইউনিক প্রতিবেদক, মোল্লাহাট (বাগেরহাট) :

বাগেরহাট জেলার মোল্লাহাটের দারিয়ালা কাচনা কুশলা (ডিকেকে) মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোল্লা জমির হোসেনের বিরুদ্ধে সরকারি নিয়ম কানুন অমান্য করার মাধ্যমে ওই বিদ্যালয়ের উপবৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের থেকে মাসিক বেতন সহ বিভিন্ন অজুহাতে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ অনিয়ম দুর্নীতি ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে শনিবার দুপুরে অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী সমাবেশ করে শিক্ষার্থীরা।

সমাবেশে অংশ নেয়া শিক্ষার্থীরা জানায়, উপবৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠানকে মাসিক বেতন সহ অন্যান্য যাবতীয় অর্থ প্রদান বা পরিশোধ করা হয়। সরকারের মহৎ গুণের এ বিষয়টি গোপন করে অন্যায় ভাবে শিক্ষার্থীদের থেকে নিয়মিত মাসিক বেতন সহ অন্যান্য অজুহাতে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে চলেছেন প্রধান শিক্ষক। এ অনিয়ম দুর্নীতি ও অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার ধারাবাহিকতায় এবারও পরীক্ষার্থীদের থেকে ৩৫০ টাকা (পরীক্ষার ফিস) ছাড়াও মাসিক বেতন মিলিয়ে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের থেকে ১৭৯০ টাকা আদায় করা হচ্ছে। একইভাবে অন্যান্য শ্রেণির উপবৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের থেকেও অর্থ হাতিয়ে নেওয়া হয়। ইতিমধ্যে কারো কারো কাছ থেকে উক্ত অবৈধ উপায়ে অর্থ নেয়া হয়েছে। এ অবৈধ অর্থ আদায় করতে শিক্ষার্থীদেরকে দাঁড়িয়ে শাস্তি দেয়া সহ বেশি কথা বলা হয় বলেও অভিযোগ করেন শিক্ষার্থীবৃন্দ।

এ অভিযোগের বিষয় অস্বিকার করে দারিয়ালা কাচনা কুশলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোল্লা জমির হোসেন বলেন, উপবৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা ভুল করে হয়তো কেউ মাসিক বেতন সহ টাকা দিয়ে থাকতে পারে। বিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে শিক্ষার্থীদের সমাবেশ সম্পর্কে তিনি বলেন, কেন সমাবেশ করেছে তা আমার জানা নেই, এটা শিক্ষার্থীদের বিষয়।

সচেতন মহলের দাবি, সরকারের মহৎ উদ্যোগ গুলো এভাবে গোপন করে যেন কেউ শিক্ষার্থীদের থেকে অর্থ হাতিয়ে নিতে না পারে সে বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরি হস্তক্ষেপ প্রয়োজন।

আপনার মতামত জানানঃ