ফুলতলায় ইউএনও সাদিয়া আফরিনের তড়িৎ পদক্ষেপে মাদ্রাসা ছাত্রীর শ্লীলতাহানির আসামী আটক

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধি// ফুলতলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিনের তড়িৎ পদক্ষেপে ৬ষ্ঠ শ্রেণির মাদ্রাসা ছাত্রীর শ্লীলতাহানিকারী লম্পট জাকির হোসেন (৪০) কে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর পিতা বাদি হয়ে ফুলতলা থানায় মামলা করলে বৃহস্পতিবার তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ফুলতলার যুগ্নিপাশার দাখিল মাদ্রাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে পড়–য়া ছাত্রী (১৩) গত রোববার প্রাইভেট পড়ে বাড়ি ফেরার পথে ওই এলাকার আক্কাস আলী মোড়লের পুত্র জাকির হোসেন তার শ্লীলতাহানী ঘটায়। ভুক্তভোগী ্ওই পরিবার গত ৩ দিন ধরে থানা পুলিশে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পায়নি। ফলে বুধবার দুপুরে তারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিনকে বিষয়টি জানালে তিনি তৎক্ষনিকভাবে পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে সন্ধ্যায় লম্পট জাকিরের বাড়ি হানা দেয়। এ সময় কৌশলে জাকির হোসেনকে করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে শ্লীলতাহানির কথা স্বীকার করে। এ ব্যাপারে যুগ্নিপাশা গ্রামের মৃতঃ মোকছেদ মোড়লের পুত্র রিকাবুল মোড়ল বাদি হয়ে জাকির হোসেনকে আসামী করে ফুলতলা থানায় মামলা করেন। পুলিশ বৃহস্পতিবার তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন বলেন, ফুলতলা উপজেলায় ইভটিজিং, শ্লীলতাহানি ও বাল্য বিবাহের কোন ঘটনা ঘটলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে এবং তাদের ব্যাপারে কোন ছাড় দেয়া হবে না।