যশোরে বিএনপি নেতা ইকু চৌধুরীর মৃত্যু

যশোর অফিস: যশোর জেলা বিএনপির সহসভাপতি, মুক্তিযোদ্ধা ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ইকরামুল কবির ওরফে ইকু চৌধুরী (৭০) মারা গেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।  হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে শনিবার সকাল নয়টা সাত মিনিটে তিনি মারা যান। তিনি শহরের চাঁচড়া এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা ছিলেন।

চাঁচড়া ডালমিল এলাকার বাসিন্দা যশোর জেলা মৎস্য চাষি ও হ্যাচারি মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব ফিরোজ খান জানান, শনিবার সকালে ইকু চৌধুরী শহরের চাঁচড়া ডালমিল এলাকার নিজস্ব বাসভবনে বাথরুমের মধ্যে গিয়ে মাথা ঘুরে পড়ে যান। পরিবারের লোকজন টের পেয়ে তাকে দ্রুত যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু কর্তব্যরত ডাক্তাররা জানান, হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

ইকু চৌধুরী তিন ছেলে, দুই মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তার দুই ছেলেকে সম্প্রতি পুলিশের রুজু করা কথিত বন্দুকযুদ্ধে হত্যার মামলায় আসামি করা হয়। বাদআছর চাঁচড়া ডালমিল জামে মসজিদে নামাজে জানাজা শেষে তাকে চাঁচড়া রাজবাড়ি কবরস্থানে দাফন করা হয়।

জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক আলহাজ আনিছুর রহমান মুকুল জানান, মরহুম ইকু চৌধুরী জীবদ্দশায় রাজনীতি ছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তিনি যশোর পৌরসভার সাবেক কমিশনার (বর্তমান পদ কাউন্সিলর), চাঁচড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান, সীমান্ত বাসমালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক. চাঁচড়া ডালমিল জামে মসজিদের সভাপতিসহ আরো বেশকিছু সংগঠনের দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া তিনি ছিলেন একজন সফল মাছ চাষি। যৌবনে দেশ স্বাধীনের জন্য মুক্তিযুদ্ধও করেছিলেন।

প্রবীণ এই নেতার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বিএনপি জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম ও সহসাংগঠনিক সম্পাদক (খুলনা বিভাগ) অনিন্দ্য ইসলাম অমিত। পৃথক শোকবার্তায় তারা ইকু চৌধুরীর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবার-সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। অনুরুপ বিবৃতি দিয়েছেন জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা) যশোরের নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন, ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতা,জাগপা যশোর জেলার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি নিজামদ্দিন অমিত, জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক কামাল চৌধুরী,সহ সভাপতি ইদ্রিস মৃধা,নুরজাহান ইসলাম,সাবিত্রী বিশ্বাস,বজলু হাত্তলাদার,খন্দকার আলমগীর হোসেন আলম,সহ সাধারণ সম্পাদক খন্দকার জাহিদ হাসান, শেখ কায়েম আলী, আব্দুল মজিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন মধু, প্রচার সম্পাদক শাহাজান, দপ্তর সম্পাদক ডা. রবিউল ইসলাম,অর্থ সম্পাদক আফসানা ইয়াসমিন অনুরূপা, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী জাবেদ,সহ প্রচার সম্পাদক সৈয়দ মনজুর হাসান রাব্বু, সহ-দপ্তর সম্পাদক মিল্টন গাজী, জাগপা নেতা মুকুল শেখ,রফিকুল ইসলাম রফিক,ফরহাদ আহম্মেদ, রেজোয়ান বাবু, মজিবুর রহমান,সরুজ খান,প্রতাপ বিশ্বাস,সৌরভ বিশ্বাস, সোহানুর রহমান সোহেল, দিপু হোসেন, মনঞ্জুর ইসলাম,আব্দুল জব্বার, মঞ্জুর গাজী, জিয়াউর রহমান ভান্ডারী,আমিনুর রহমান প্রমুখ।শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের খুলনা বিভাগীয় আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি রবিউল হোসেন রবি, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম বক্স দুদু, কার্যকরী সভাপতি ছাদেক আহম্মেদ খান প্রমূখ।

আপনার মতামত জানানঃ