বাপ কা বেটা, বাবু’র স্বাধীনতা পুরুষ্কার গ্রহণ করলেন পুত্র ভূমিমন্ত্রী জাবেদ

এম.এম.জাহিদ হাসান হৃদয় (আনোয়ারা,চট্টগ্রাম): মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে অসামান্য অবদান রাখার জন্য মরণোত্তর স্বাধীনতা পদকে ভূষিত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য প্রয়াত আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু’র মরণোত্তর স্বাধীনতা পদক ২০২১ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে গ্রহণ করেছেন তার জ্যেষ্ঠ পুত্র ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি।

বৃহস্পতিবার (২০-মে) সকালে গণভবনে ‘স্বাধীনতা পদক ২০২১’ প্রদান অনুষ্ঠানে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে বিশেষ অবদানের জন্য চারজন পুরস্কারপ্রাপ্তের মধ্যে আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর পক্ষে তার ছেলে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ প্রধানমন্ত্রী’র হাত থেকে পুরস্কার গ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে অন্যানদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আ. খ. ম. মোজাম্মেল হক, বিভিন্ন দপ্তরের মন্ত্রী, সচিব ও স্বাধীনতা পুরস্কারে মনোনীত ৯ বিশিষ্ট ব্যক্তি ও একটি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিবৃন্দ।

উল্লেখ্য যে, আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু ১৯৪৫ সালে ৩ মে চট্টগ্রামের আনোয়ারার হাইলধর গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর ও মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ছিলেন। স্বাধীন বাংলা সংগ্রাম পরিষদ এবং চট্টগ্রামের আঞ্চলিক পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সদস্যগণের মধ্যে তিনি অন্যতম। তার পাথরঘাটাস্থ বাসভবনে ‘জুপিটার হাউস’ থেকেই সংগ্রাম কমিটির কার্যক্রম পরিচালনা করা হতো। বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ঘোষণা এই বাসভবন থেকে সাইক্লোস্টাইল করা হয় এবং কালুঘাট অস্থায়ী বেতার কেন্দ্রসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রেরণ করা হয়। তিনি চট্টগ্রাম থেকে ১৯৭০, ১৯৮৬, ১৯৯৬ ও ২০০৮ সালে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। সর্বশেষ এই কিংবদন্তি রাজনীতিবীদ ২০১২ সালে কিডনি রোগে আক্রান্ত হয়ে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে প্রায় দীর্ঘ এক মাস চিকিৎসা নেওয়ার পর ৪ নভেম্বর মৃত্যুবরণ করেন। তার জ্যেষ্ঠ পুত্র সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ তারই যোগ্য উত্তরসূরী। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ সরকারের ভূমিমন্ত্রী।

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার ও মুক্তির দাবিতে ফুলতলায় সাংবাদিকদের প্রতিবাদ সমাবেশ

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ প্রথম আলোর সিনিয়র সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা ও প্রত্যাহার, অবিলম্বে তার মুক্তি এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের সড়যন্ত্রকারী দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে বৃহস্পতিবার বিকালে খুলনার প্রেসক্লাব ফুলতলার আয়োজনে এক প্রতিবাদ সমাবেশ ক্লাব কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। মোঃ সেকেন্দার আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী জাফর উদ্দিন।

বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট কলামিষ্ট বিধানদাস গুপ্ত, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক বিশ^নাথ ঘোষ। প্রধান বক্তা ছিলেন উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি শামসুল আলম খোকন। স্বাগত বক্তৃতা করেন প্রেসক্লাব ফুলতলা সভাপতি তাপস কুমার বিশ্বাস। সহকারী অধ্যাপক মোঃ নেছার উদ্দিনের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন মুক্তিযোদ্ধা সুবোধ কুমার বসু, প্রভাষক মাজহারুল ইসলাম, অনুপ কুমার বিশ্বাস, মোঃ কামরুজ্জামান, মাহিদুল ইসলাম, রমজান মাহমুদ অরণ্য, এমরানুর রহমান বিপ্লব, বিল্লাল হোসেন, জসিম ফারাজি প্রমুখ।

চট্টগ্রামের কর্মরত সাংবাদিকদের মানববন্ধনে বক্তারা অপকর্ম ঢাকতে মামলা-হামলা ও অপকৌশলের আশ্রয় নিচ্ছে দুর্নীতিবাজ আমলারা

চট্টগ্রাম ব্যুরো:দেশের কিছু দুর্নীতিবাজ আমলাদের বিরুদ্ধে ধারাবাহিক অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করে সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম সাধারণ মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়ে ছিলেন। তিনি একের পর এক বৈশ্বিক অতি মহামারির এ সময়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের ভয়াবহ দুর্নীতি ও দুর্নীতিবাজদের মুখোশ উন্মোচন করে আসছে। ফলে স্বাভাবিকভাবে স্বাস্থ্য বিভাগের দুর্নীতিবাজদের আক্রোশে পরিনত হন রোজিনা।এর ধারাবাহিকতার অংশ হিসেবে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে গত ১৭ মে সচিবালয়ের স্বাস্থ্য বিভাগের একটি কক্ষে ৫ ঘন্টা আটকে রেখে হেনেস্তা এবং পরে সাজানো মিথ্যা মামলা দিয়ে জেল জুলুম নির্যাতন করা হয়। যা গোটা সাংবাদিক সমাজকে অপমানিত ও ব্যথিত করেছে।
বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে চট্টগ্রামের কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দদের উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তারা উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। সাপ্তাহিক পূর্ব বাংলা সম্পাদক এম. আলী হোসেনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, দৈনিক সকালের সময় চট্টগ্রাম ব্যুরো’র সিনিয়র রির্পোর্টার নজরুল ইসলাম, দৈনিক আজকালের খবর চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান মানস চৌধুরী, বাংলার চোখ প্রতিদিন সম্পাদক তানিয়া সুলতানা, দৈনিক অধিকার চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান আবু তাহের চৌধুরী, চন্দনাইশ প্রেসক্লাব সভাপতি এডভোকেট দেলোয়ার হোসাইন, বোয়ালখালী প্রেস ক্লাব সিনিয়র সহ সভাপতি এডভোকেট সেলিম উদ্দীন চৌধুরী, ১৬ বাংলা টিভির চেয়ারম্যান হারুনুর রশীদ, সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী স. ম জিয়াউর রহমান, দৈনিক দিশারী চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান হামিদুর রহমান, ডেইলী অবজারভার স্টাফ রিপোর্টার এম জসিম উদ্দীন, দৈনিক আমাদের সময় ডটকম চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান রিয়াজুর রহমান রিয়াজ, সাপ্তাহিক ক্রাইম বাংলা সম্পাদক শেখ ফরমান উল্লাহ চৌধুরী, চিটাগাং ডেইলী’র সিনিয়র সাংবাদিক বাবুল হোসেন বাবলা, বিএনএ’র সিনিয়র সাংবাদিক জুয়েল বড়ুয়া, সাম্প্রতিক দেশকাল চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান ইমরান হোসেন সোহেল, সাপ্তাহিক সোনালী খবর সম্পাদক আবু সাহিদ, দৈনিক সময়ের আলো স্টাফ রির্পোর্টার পংকজ কুমার, সাংবাদিক মো. মোস্তাফা, মো. শাহীন, কেফায়েত উল্লাহ আরমান, ফরহাদ খান, মো. অলমগীর, রিটন দে, মনি দেব নাথ, রিয়া দাশ, প্রিয়াঙ্কা, আনিস আহমেদ খোকন, জুলকার নাইন, জাহিদ রানা, জাবেদ রকি, রিপন চৌধুরী, মো. মুন্না, আশিক আরেফিনসহ শতাধিক বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেক্টট্রনিক ও অনলাইন গণমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। মানববন্ধন শেষে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর নিকট চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্বারকলিপি প্রদান করেন।

ফুলতলায় প্রবীন চা ব্যবসায়ী শহিদ বিহারীর ইন্তেকাল

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ ফুলতলা বাজারের বিশিষ্ট প্রবীন চা ব্যবসায়ী মোঃ শহিদুল ইসলাম ওরফে শহীদ বিহারী (১০৬) বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় দামোদরস্থ ভুঁইয়া পাড়ার নিজ বাড়িতে বার্ধক্য জনিত কারণে ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাহী রাজেউন)। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ২পুত্র, ২কন্যাসহ বহু আত্মীয় স্বজন রেখে যান। বুধবার বাদ আসর উপজেলা জামে মসজিদ চত্বরে নামাজের জানাযা শেষে উপজেলা সরকারী গোরস্থানে কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আসলাম খান, ফুলতলা বাজার বণিক কল্যাণ সোসাইটির সভাপতি রবিন বসু, সহসভাপতি ও ফুলতলা প্রেসক্লাব সভাপতি এস এম মোস্তাফিজুর রহমান, আওয়ামীলীগ নেতা কামরুজ্জামান নান্নু, ইউপি সদস্য শেখ আব্দুর রশিদ, প্রেসক্লাব ফুলতলা সভাপতি তাপস কুমার বিশ্বাস, সহকারী অধ্যাপক মোঃ নেছার উদ্দিন, প্রধান শিক্ষক প্রেমচাঁদ দাস, যুবলীগ নেতা ইকতিয়ার উদ্দিন সুমন, এস এম শফিউল আলম, জাহাঙ্গীর ভুইয়া প্রমুখ।