ওজোপাডিকোর রিবেট নিতে গ্রাহকদেরভোগান্তি রোধে পদক্ষেপ নিতে হবে

বিজ্ঞপ্তি : মাত্র একটি বুথের সামনে সারিবদ্ধ হয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছেন শত শত গ্রাহক। আর এই গ্রাহকদের জনদুর্ভোগ কমাতে নেই কোন ওজোপাডিকোর উদ্যোগ। বরং জনগনের যৌক্তিক আন্দোলনকে বন্ধ করার জন্য নেওয়া হচ্ছে অশুভ উদ্যোগ। সরকার বিদ্যুৎ বিভাগের দুর্নীতিরোধে যে প্রকল্প গ্রহণ করেছে তা নস্যাৎ করতে বিদ্যুৎ বিভাগের একটি মহল তৎপর হয়ে উঠেছে। ওজোপাডিকোকে করে তুলেছে দুর্নীতির আকড়া। সাধারণ গ্রাহকদের কাছ থেকে বিভিন্ন কায়দায় টাকা হাতিয়ে সরকারকে দেখাচ্ছে লাভজনক। এভাবে চলতে থাকলে বিদ্যুৎ বিভাগের প্রতি গ্রাহকদের আর আস্থা থাকবে না। এসব কথা বললেন প্রিপেইড মিটারের দুর্নীতি প্রতিরোধে সংগ্রাম কমিটির নেতৃবৃন্দ।
শুক্রবার রাত্রে সোনাডাঙ্গাস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে প্রিপেইড মিটারের দুর্নীতি প্রতিরোধে সংগ্রাম কমিটির জরুরী সভা ডাঃ শেখ বাহারুল আলমের সভাপতিত্বে সদস্য সচিব মহেন্দ্রনাথ সেনের পরিচালনায় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন খুলনা উন্নয়ন ফোরামের চেয়ারম্যানও কমিটির যুগ্ম-আহবায়ক শরীফ শফিকুল হামিদ চন্দন ও মোড়ল নুর মোহাম্মদ, যুগ্ম সদস্য সচিব শাহ মামুনুর রহমান তুহিন , ওয়ার্কার্স পার্টির শেখ মফিদুল ইসলাম দেলোয়ার হোসেন দিলু, মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম, সাংবাদিক এইচ এম আলাউদ্দিন প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, যতক্ষণ পর্যন্ত গ্রাহকদের সংকট না মিটবে ততক্ষন পর্যন্ত প্রিপেইড মিটারের দুর্নীতি প্রতিরোধে সংগ্রাম কমিটির আন্দোলন চলবে। নেতৃবৃন্দ বলেন আন্দোলনের ফসল রিবেট আর এই রিবেটের টাকা গ্রাহক যেন সহজে ঘরে বসে পায় তার ব্যবস্থা করতে হবে। গ্রাহককে জিম্মি করা চলবেনা। রিবেটের টাকার সুদ ও গাহকে ফিরিয়ে দিতে হবে। ওজোপাডিকোর সদর দপ্তরকে করতে হবে গ্রাহকবান্ধব। গ্রাহকের টাকায় যারা চলবে তারা হবে গ্রাহকদের প্রভু , এটা হতে পারেনা। নেতৃবৃন্দ বলেন ওজোপাডিকোর মিটার ক্রয়ের দুর্নীতি খতিয়ে দেখতে সরকারের নিকট আহবান জানিয়েছেন।

আপনার মতামত জানানঃ