আনোয়ারায় ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে খুন

এম.এম.জাহিদ হাসান হৃদয়,(আনোয়ারা,চট্টগ্রাম):

চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলায় জায়গা জমির বিরোধ নিয়ে গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে রতন দাশ (৫৫) নামের এক মুদির দোকানীকে খুন করেছে প্রতিপক্ষ।

শনিবার (২৬ জুন) সকাল ১১ টার দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের খিলপাড়া গ্রামে রমেশ দাশের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, নিহত রতন দাশ ৭নং সদর ইউনিয়নের ১নং খিলপাড়া ওয়ার্ডের রমেশ দাশের বাড়ীর মৃত নির্মল দাশের ছেলে। নিহত রতন দাশের ৩ কন্যা সন্তান রয়েছে।

নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে রতন দাশের সাথে স্থানীয় মিন্টু ভৌমিক ও টিটু ভৌমিকের মধ্যে জায়গা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। কয়েক মাস আগে রতন দাশ তার দখলীয় জায়গা থেকে গাছ কাটলে প্রতিপক্ষ বাধা দেয়। এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ঘটনার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত কাটা গাছ ঘটনাস্থলে রেখে দিতে বলে। কিন্তু নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে আজ শনিবার মিন্টু ভৌমিক ও তার পরিবারের সদস্যরা পরিকল্পিতভাবে রতন দাশের পরিবারের উপর হামলা করার উদ্দেশ্যে কাটা গাছ টা নিয়ে যেতে চাইলে রতন দাশ বাধা দেন। এসময় ধারালো দা দিয়ে রতন দাশের শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপ এবং লাঠি দিয়ে মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে মিন্টু ভৌমিক,টিটু ভৌমিক এবং নিলয় কিশোর ভৌমিক। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় রতন দাশকে উদ্ধার করে আনোয়ারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এই বিষয়ে নিহত রতন দাশের স্ত্রী অশ্রু দাশ জানান,পূর্ব পরিকল্পিতভাবে মিন্টু ভৌমিক,টিটু ভৌমিক, এবং টিটু ভৌমিকের স্ত্রী কণিকা ভৌমিক ও তার ছেলে নিলয় কিশোর ভৌমিক আমাদের জায়গার কাটা গাছ নিয়ে যাওয়ার বাহানায় আমি এবং আমার স্বামী ও মেয়ের উপর হামলা করে। তারা দা এবং লাটি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে আমার স্বামী কে হত্যা করে। আমি আমার স্বামীর হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

এই ঘটনায় আনোয়ারা থানায় নিহতের স্ত্রী অশ্রু দাশ বাদী হয়ে চার জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
আসামীরা হলেন, টিটু ভৌমিক (৫০), মিন্টু ভৌমিক (৪৭), নিলয় কিশোর ভৌমিক (১৯), কনিকা ভৌমিক (৪৫)।

ঘটনার তদন্তের বিষয়ে আনোয়ারা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সৈয়দ ওমর বলেন, জায়গা জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সকালে আনোয়ারা সদরের খিলপাড়া গ্রামে রতন দাশ নামে এক ব্যবসায়ীকে ধারালো দা ও লাঠি দিয়ে আঘাত করলে তিনি গুরুতর জখম হয় । তাকে আনোয়ারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। পরবর্তীতে নিহতের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এই ঘটনার ব্যাপারে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে এবং অভিযুক্ত টিটু ভৌমিকের ছেলে নীলয় কিশোর ভৌমিক ও স্ত্রী কণিকা ভৌমিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

দাকোপে কারিতাসের উদ্যোগে স্বল্প মূল্যের গৃহের উদ্বোধন

আসগর হোসেন সাব্বির : দাকোপের বানীশান্তায় কারিতাস খুলনাঞ্চলের উদ্যোগে হতদরিদ্র জনগোষ্টির জীবনমান উন্নয়নে দেওয়া স্বল্প মূল্যের গৃহের উদ্বোধন ও আর্শিবাদ করা হয়েছে।
শনিবার সকাল ৯ টায় আমতলা এলাকায় প্রধান অতিথি হিসাবে উদ্বোধন ও আর্শিবাদ করেন কারিতাস বাংলাদেশ’র প্রেসিডেন্ট বিশপ জেমস রমেন বৈরাগী। জীবন জীবিকার উন্নয়ন ও দূর্যোগ ঝুকি হ্্রাসের মাধ্যমে জনগোষ্টির সক্ষমতা বৃদ্ধিকরন (ইধারভিসিই) প্রকল্পের আওতায় এবং জার্মানীর আর্থিক সহযোগীতায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রকল্পের আঞ্চলিক পরিচালক মি. দাউদ জীবন দাশ। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রেভা. ফাদার দানিয়েল মন্ডল, মি. তাপস সরকার প্রোগ্রাম অফিসার দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ, ইউপি সদস্য ফিরোজ আলী খান, মি. বিপুল সরকার ও পবিত্র কুমার মন্ডল। সুবিধাভোগীদের উদ্দেশ্যে প্রধান অতিথি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে পরিবেশ ও মানুষের জীবন যাত্রার পরিবর্তন হয়েছে। সেই পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে নির্মিত টেশসই গৃহে প্রকৃতির প্রতি যত্নশীল এবং ধর্মীয় মনোভাব নিয়ে শৃংক্ষলার সাথে বসবাসের আহবান জানান। অনুষ্ঠানে ৮০ টি পরিবারকে স্বল্প মূল্যের দূর্যোগ সহনশীল গৃহ নির্মানের জন্য অর্থ সহায়তা করা হয়।

খুলনায় গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় ৯ জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক :

খুলনায় গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আরও ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকাল ৮ টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘন্টায় ২টি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়।

এরমধ্যে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ডেডিকেটেড ইউনিটে ৭ জন ও বেসরকারি গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

খুলনা করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, গত ২৪ ঘন্টায় খুলনা করোনা হাসপাতালে রেড জোনে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এরা হলেন- খুলনা সদরের আনিসুর (৬০) ও পিরোজপুর সদরের লতিফ শেখ (৭৫), নড়াইলের কালিয়ার তাহিরুল (৭০), খুলনা সদরের ইমরান (৪৮), বাগেরহাটের সদরের শহিদুল্লাহ (৭৪), মিঠুন (২৮) ও একই এলাকার কুলসুম (৯০)।

খুলনার ১৩০ শয্যার করোনা হাসপাতালে ১৫৬ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ভর্তি হয়েছেন ২৯ জন, আবার সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরেছেন ৪০ জন। আর আইসিইউ’তে রয়েছেন ১৯ জন।

গাজী মেডিকেলের স্বত্বাধিকারী গাজী মিজানুর রহমান জানান, গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। এরা হলেন- যশোরের কেশবপুরের ভরতবায়না এলাকার জিয়াউর রহমান (৪২) ও মনিরামপুরের রামপুর এলাকার মোঃ ইহসাক সানা (৮০)। এ হাসপাতালে ৯৪জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন, তার মধ্যে আইসিইউতে ৭জন ও এইচডিইউতে ৭জন।

খুলনা ২৫০ জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. কাজী আবু রাশেদ জানান, ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি। গেল ২৪ ঘন্টায় আরো ৫ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন, আর সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরেছেন ৮জন। মোট চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৬৬জন রোগী।

খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ জানান, শুক্রবার রাতে খুমেকের পিসিআর মেশিনে মোট ৫৪৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ২১০ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। যার মধ্যে খুলনার ৪২৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে ১৭২ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে।এছাড়া বাগেরহাটে ২৫ জন, যশোরে ৭ জন, সাতক্ষীরায় ১ জন, ও নড়াইলের ২ ও পিরোজপুরের ১ জন রয়েছেন।